রোহিঙ্গা গণহত্যা : মিয়ানমারকে কি আন্তর্জাতিক আদালতে নেওয়া যাবে?

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা মেডিসিনস স্যানস ফ্রন্টিয়ারস (এমএসএফ) জানিয়েছে, আগস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর ২৪ পর্যন্ত অন্তত ৬ হাজার ৭'শ রোহিঙ্গা মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সহিংসতার শিকার হয়ে মারা গেছে। নিহতদের মধ্যে ৫ বছরের কম বয়সী ৭৩০ শিশু রয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।
এ অপরাধে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মামলা করা যায় কি না তা বিশ্লেষণ করেছেন বিবিসি'র দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া প্রতিনিধি জোনাথন হেড।

সাংবাদিক ও গবেষকদের প্রতিবেদন বিশ্লেষণ ও শরণার্থীদের সাক্ষাৎকার পর্যালোচনা করলে কোনো সন্দেহের অবকাশ থাকে না যে মিয়ানমারের নিরাপত্তাবাহিনীর হাতে মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়েছে।

এমএসএফ'এর প্রতিবেদনের তথ্য পর্যালোচনা করে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংসতা সম্পর্কে পরিস্কার ধারণা পাওয়া যায়। প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগে মামলা করার সম্ভাব্য সুযোগও থাকে।

তবে এক্ষেত্রে দুটি বাধা আছে। একটি হচ্ছে, আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের "রোম সনদ", যা সংস্থাটির গঠনকালীন সময়ের মূল দলিল, সেটিতে মিয়ানমার কখনোই স্বাক্ষর করেনি। কাজেই আদালতের সহযোগিতা করতে তারা বাধ্য নয়।

দ্বিতীয়ত, আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মামলা নিতে হলে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্যের প্রত্যেকের অনুমতি প্রয়োজন। এখন পর্যন্ত চীন মিয়ানমার সরকার যেভাবে এই সঙ্কট মোকাবেলা করেছে, তাতে পূর্ণ সমর্থন দিয়ে এসেছে।
ফলে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে ব্যবস্থা গ্রহণে দুটি বাধা রয়েছে।

সূত্র : বিবিসি বাংলা

learnquranbd.com