হলিউডে ‘হিমু’!

মুজিব সেনা নিউজ : নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ‘হিমু’ এবার হলিউডে। তবে, কোনো অভিনয়ের জন্য নয়। ক্যামেরার পিছনে কাজ করতে। হুমায়ূন আহমেদের চন্দ্রকারিগর নাটকের মাধ্যমে হিমু পরিচয় পাওয়া এবং বাংলাদেশের বিজ্ঞাপন ও নাটকে পরিচিত এই মুখ এখন হলিউডের বিখ্যাত এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সনি পিকচার্স ইমেজওয়ার্কসে অ্যাসোসিয়েট প্রডাকশন ম্যানেজার। তিনি ওয়াহিদ ইবনে রেজা, একজন স্বপ্নবাজ মানুষ।

২০০৬ সালে বুয়েট থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক শেষ করেন ওয়াহিদ। তারপর যোগ দেন একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থায়। ক্যারটকমে কিছুদিন কাজ করে যোগ দেন গ্রে অ্যাডভার্টাইজিং বাংলাদেশে। সেখানে পালন করেছেন কপি হেডের দায়িত্ব। ২০১০ সালে দেশ ছেড়ে কানাডায় পড়তে যান ওয়াহিদ। ভর্তি হন ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায়, ফিল্ম প্রোডাকশন বিষয়ে পড়ার জন্য।

সেখান থেকে ইন্টার্নশিপের জন্য যান মার্কিন প্রতিষ্ঠান এনবিসি ইউনিভার্সেলে। সেখানে তার প্রথম কাজ ছিল টেলিভিশন ধারাবাহিক স্যুটস ও ডিফায়েন্স-এ।  

এরপর ফাইনাল ইয়ারের প্রজেক্ট হিসেবে নির্মাণ করেন একটা শর্ট ফিল্ম। ‘হোয়াট আই অ্যাম ডুয়িং হেয়ার’ নামের ওই শর্ট ফিল্মের জন্য পারসিসটেন্স অব ভিশন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ওয়াহিদের হাতে উঠেছিল বেস্ট সিনেমাটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ড। এ ছাড়া টরন্টো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের শর্ট লিস্টেও ছিল শর্টফিল্মটির নাম। গ্র্যাজুয়েশন শেষে যোগ দেন অ্যানিমেশন স্টুডিও বার্ডেলে। সেখানে কিছু কাজ করার পর চোখ পড়ে এমপিসির একটা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি। পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়ে যোগ দেন প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর হিসেবে।

সুপার হিরো ফিল্ম ‘ডক্টর স্ট্রেঞ্জ’-এর দর্শক-নন্দিত ভিজ্যুয়াল ইফেক্টের কাজেও যুক্ত ছিলেন ওয়াহিদ, যা অস্কারের জন্য নমিনেশন পায়। প্রযোজনা সংস্থা মার্ভেল থেকে গত বছর মুক্তি পায় ছবিটি। রেজা বর্তমানে ‘হোটেল ট্রান্সসিলভানিয়া থ্রি’-র সহকারী প্রডাকশন ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছেন। এই থ্রিডি অ্যানিমেটেড ফ্যান্টাসি কমেডিটি প্রযোজনা করছে সনি পিকচার্স অ্যানিমেশন।  

এর আগে, রেজা জনপ্রিয় ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা: সিভিল ওয়ার’ এবং ‘ব্যাটম্যান ভার্সেস সুপারম্যান: ডন অব জাস্টিস’ ছবি দুটির ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করেছেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ নিয়ে প্রথম বাংলা দ্বিমাত্রিক অ্যানিমেটেড ফিচার ফিল্ম ‘সার্ভাইভিং সেভেন্টি ওয়ান’-এর চলচ্চিত্রের লেখক, পরিচালক এবং নির্বাহী প্রযোজক হিসেবে রয়েছেন ওয়াহিদ ইবনে রেজা।

বাংলাদেশের ভিএফএক্স খাতে প্রচুর আগ্রহী তরুণ রয়েছে। তাদের অনুপ্রেরণা ওয়াহিদ ইবনে রেজা। মজার খবর হচ্ছে, সেই তরুণদের স্বপ্নের কথা শোনাতে বাংলাদেশে একটি কনফারেন্সে ভার্চুয়ালি যোগ দিচ্ছেন ওয়াহিদ। ৭ ডিসেম্বর বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে এসিএম সিগ্রাফ আয়োজিত ‘সিগ্রাফ ঢাকা চ্যাপ্টার’ শীর্ষক এক কনফারেন্সে প্যানেলিস্ট হিসেবে অনলাইনে যোগ দিবেন তিনি। এছাড়াও বাংলাদেশ থেকে প্রথম ও একমাত্র অস্কার বিজয়ী নাফিস বিন জাফর এবং অগনিরথ স্টুডিওস-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও জুবায়ের কাওলিন প্যানেলিস্ট হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সেদিন।

সিগ্রাফ একটি নিউ ইয়র্ক ভিত্তিক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। এটি কম্পিউটার গ্রাফিক্স এবং ইন্টার‌্যাক্টিভ টেকনিক নিয়ে কাজ করে। ১৯৬৯ সালে অ্যান্ডি ভ্যান ড্যাম এটি প্রতিষ্ঠা করেন। এসিএম সিগ্রাফ বার্ষিক সিগ্রাফ সম্মেলনের আয়োজন করে। এতে কম্পিউটার পেশাজীবীরা অংশগ্রহণ করেন। লস অ্যাঞ্জেলেস, লন্ডন, হংকং, ম্যানিলা, বাংকক-সহ বিশ্বের বিভিন্ন শহরে থাকা সিগ্রাফ চ্যাপ্টারের সাথে সংযুক্ত হতে যাচ্ছে সিগ্রাফ ঢাকা চ্যাপ্টার।

সিগ্রাফ ঢাকা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে তাদের ফেসবুক পেজে যোগ দিতে পারেন: facebook.com/SiggraphDhaka

learnquranbd.com